Categories
Sports

২০২৩ বিশ্বকাপের পরিকল্পনাতেই অধিনায়কত্ব ছেড়েছেন মাশরাফি।

মাশরাফি বিন মর্তুজা কোন সন্দেহ ছাড়াই তিনি দেশ সেরা ওয়ানডে অধিনায়ক। শুধু অধিনায়কই নন মাশরাফি ছিলেন ড্রেসিরুমের প্রাণভোমরা। তার নেতৃত্ব গুনে এখন বাংলাদেশ বড় প্রতিপক্ষের চোখে চোখ রেখে লড়াই করতে শিখেছে।

Get the kotha app

মাশরাফি বিন মর্তুজা কোন সন্দেহ ছাড়াই তিনি দেশ সেরা ওয়ানডে অধিনায়ক। শুধু অধিনায়কই নন মাশরাফি ছিলেন ড্রেসিরুমের প্রাণভোমরা। তার নেতৃত্ব গুনে এখন বাংলাদেশ বড় প্রতিপক্ষের চোখে চোখ রেখে লড়াই করতে শিখেছে। ২০০৯ সালে ইনজুরিতে পড়ে মাশরাফি টেস্ট ছেড়েছেন কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা ছাড়াই। ২০১৭ সালে টি-টোয়েন্টিকে বিদায় বলেছেন । ওয়ানডে ক্রিকেটকেও এই বছর হুট করে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ চলাকালীন সময়ে শেষ ওয়ানডে ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক থেকে অবসর ঘোষণা দেন। এরপর সিলেটে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শেষ এবং অধিনায়ক হিসেবে ৫০তম জয় নিয়ে অধিনায়কত্ব থেকে অবসরের যান মাশরাফি।

বাংলাদেশ ক্রিকেটকে বদলে দেওয়া মাশরাফি কেন হঠাৎ অধিনায়ক থেকে অবসর নিলেন? সাম্প্রতি হুট করে নেতৃত্ব ছাড়ার কারণ জানিয়ে ক্রিকবাজকে এক সাক্ষাৎকারে মাশরাফি বলেন, 
“আগামী বিশ্বকাপের এখনো তিন বছর বাকি। এখন থেকেই বিসিবি একজন অধিনায়ককে নিয়ে পরিকল্পনা সাজাক। বোর্ড সবসময় তাদের সেরা অধিনায়ককেই চাইবে। এটা ভালো একটা সুযোগ ছিল (নতুন অধিনায়ক নির্বাচনের)। তামিম (তামিম ইকবাল) ইনশাআল্লাহ্‌ ভালো করবে, আমি খুব আশাবাদী। সাকিবও (সাকিব আল হাসান) বিবেচনায় থাকবে। তামিম ভালো না করলে বোর্ড অন্য কারও কথা ভাববে। বোর্ডের হাতে তাই অনেক সুযোগ আছে। বিশ্বকাপের আগে তিন বছর সময় হাতে পাচ্ছে বোর্ড। এসব ভেবেই আমি (নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর) সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

Reviewer: Argha Majumder

Get the kotha app

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *