Categories
Sports

কার্ডিফে দুরন্ত এক তরুণের ব্যাটিং তান্ডবের স্মৃতি।

ক্রিকেট ইতিহাসে রয়েছে রেকর্ডের ফুলঝুরি। কত-শত রেকর্ড হলো ক্রিকেট পাড়ায়; কত-শত মহাকাব্য রচিত হলো ২২ গজে। এইসব রেকর্ড আমরা ক’জনই বা মনে রাখি? দিনশেষে স্মৃতির পাতা উল্টালে দেখা মিলে বহু আগের পুরনো স্মৃত

Get the kotha app

ক্রিকেট ইতিহাসে রয়েছে রেকর্ডের ফুলঝুরি। কত-শত রেকর্ড হলো ক্রিকেট পাড়ায়; কত-শত মহাকাব্য রচিত হলো ২২ গজে। এইসব রেকর্ড আমরা ক’জনই বা মনে রাখি? দিনশেষে স্মৃতির পাতা উল্টালে দেখা মিলে বহু আগের পুরনো স্মৃতি। যেই স্মৃতি গুলো যেনো একেকটি ইতিহাস; একেকটি মহাকাব্য।

সোফিয়া গার্ডেন, কার্ডিফে ২০০৫ সালের ১৮-ই জুনের স্মৃতিতে ফিরে গেলাম। এবার যা দেখলাম সেটা যে স্বপ্নের মতো মনে হলো। শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া দলকে যেনো একা হাতে দমন করছেন এক কিশোর; দুরন্ত কিশোর।

সেদিন অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ২৫০ রানের লক্ষ্যটিও লাল-সবুজের দেশের সামনে যেনো মামুলি টার্গেট! আর হবেই না বা কেন? ২২ গজে তখন বাংলাদেশের হয়ে অস্ট্রেলিয়ার শক্তিশালী বোলিং লাইনআপের সেই দেওয়ালটিকে ভেঙ্গে চুরমার করে দিচ্ছিলো এক কিশোর! যিনি হারের বৃত্তে থাকা দলটাকে দেখিয়েছিলেন আশার আলো। কিশোরটির নাম মোহাম্মদ আশরাফুল।

আশরাফুল; তখন ২০ বছর বয়সী এক দুরন্ত কিশোর। অপরিচিত কন্ডিশন; আর বিপক্ষের বাঘা বাঘা পেসারদের সামনে ক্রিকেটের ২২ গজে যখন নামলেন তখন বাংলাদেশের ২ সেট ব্যাটসম্যান সাজঘরে। ম্যাচ বাঁচানোর গুরুদায়িত্ব নিজের কাঁধেই যেনো তুলে নিলেন ২০ বছর বয়সী সেই বালকটি। কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনের ২২ গজে যখন লম্বা লাইনআপ নিয়ে ঝড়ের গতিতে ছুটে আসে গ্লেন ম্যাকগ্রা, জেসন গিলেস্পি, মাইকেল কাসপ্রোভিচরা তখন ব্যাট হাতে সাবলীল ভঙ্গিতে একের পর এক দৃষ্টি নন্দিত শটে গ্যালারি মাতিয়ে তোলেন আশরাফুল! ব্র্যাড হগের স্পিন ঘূর্ণিটিও খেললেন দারুণ ভাবে। দূর থেকে রিকি পন্টিং একটু অবাক চোখে চেয়ে দেখলেন; আর মনে মনে বললেন বয়সটা ২০ হলে কি আসে যায়? ছেলেটির শটগুলো যে চোখের শান্তি!

ম্যাচে গিলেস্পি, ম্যাকগ্রাদের বিপক্ষে যখন ১১ বাউন্ডারিতে সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে আকাশ পানে ব্যাট উঁচিয়ে সেঞ্চুরি উদযাপন করলেন তখন দূরে দাঁড়িয়ে অজি কাপ্তান রিকি পন্টিং সেই মজার দৃশ্য উপভোগ করলেন! তখন দূরে দাঁড়িয়ে থেকে হাততালি দেওয়া ছাড়া যে পন্টিংয়ের কিছুই করার ছিলো না!

সেই কার্ডিফের ঐতিহাসিক ম্যাচে ব্যাট হাতে ১০১ বলে ১১ বাউন্ডারিতে দলের মোট রানের ৪০% রান অথাৎ ১০০ রান এসেছিলো কিশোর অ্যাশের ব্যাটে। আশরাফুলের সাথে বাশার-আফতাবের ব্যাটে অস্ট্রেলিয়াকে ৫ উইকেটে হারিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে প্রথম বারের মতো হারানোর স্বাদ গ্রহন করে টাইগাররা।

আজ সময় পেরিয়েছে; বাংলাদেশ ক্রিকেট খেলায় এগিয়েছে। পরিণত হয়েছে বিশ্বের উদীয়মান শক্তিশালী দলের একটিতে। কিন্তু সেই ২০০৫ সালের ১৮-ই জুন বাংলাদেশ দলে ছিলো না এতো তারকা ক্রিকেটার; তবে ছিলো একজন আশরাফুল। যিনি সেদিন সব আলো কেড়ে নিয়েছিলেন নিজের দিকে। ব্যাট হাতে তান্ডব চালিয়েছিলেন ২২ গজে; করেছিলেন সেঞ্চুরি, লিখেছিলেন ইতিহাস।

Reviewer: Argha Majumder

Get the kotha app

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *