Categories
Invention

পরীক্ষা ব্যবস্থার উদ্ভাবক যিনি ছাত্র সমাজের কাছে এক খলনায়ক।

ছাত্রজীবনে পরীক্ষা নামক দানব তাড়া করে বেড়ায় দিনরাত্রি। পরীক্ষার চিন্তায় নাওয়া খাওয়া শিকেয় উঠে বসে। ক্লাস পরীক্ষা, সাপ্তাহিক পরীক্ষা, মাসিক পরীক্ষা, হঠাৎ পরীক্ষা, ষাণ্মাসিক পরীক্ষা, টিউটোরিয়াল পরীক্ষা

Get the kotha app

ছাত্রজীবনে পরীক্ষা নামক দানব তাড়া করে বেড়ায় দিনরাত্রি। পরীক্ষার চিন্তায় নাওয়া খাওয়া শিকেয় উঠে বসে। ক্লাস পরীক্ষা, সাপ্তাহিক পরীক্ষা, মাসিক পরীক্ষা, হঠাৎ পরীক্ষা, ষাণ্মাসিক পরীক্ষা, টিউটোরিয়াল পরীক্ষা, প্রস্তুতি পরীক্ষা, অর্ধ বাৎসরিক পরীক্ষা, বাৎসরিক পরীক্ষা, ভর্তি পরীক্ষা, চাকরির পরীক্ষা– পরীক্ষার যেন অভাব নেই! এতসব পরীক্ষার যাঁতাকলে রীতিমত নাভিশ্বাস উঠে যায় ছাত্রদের। পরীক্ষার সাতদিন আগে থেকেই এক অজানা আতঙ্ক ভর করে বসে মনের মধ্যে। কেমন যেন অস্বস্তিকর একটা অনুভূতি বিরাজ করতে থাকে। খাওয়ার অরুচি, মাথাব্যথা, বমি বমি লাগা এমনকি অনেকের জ্বরও চলে আসে!

চলছে পরীক্ষার মৌসুম। মানে আবার সেই পুরনো পড়া রিভিশন দাও। টেনশনে চোখ ঢুলুঢুলু। বই আর বই। সারা বছর তো ঠিকই পড়াশোনা করেছি, অনেক জ্ঞানও হয়েছে। আবার এই হতচ্ছাড়া পরীক্ষার কী দরকার! সারা বছরের জ্ঞান কি আর তিন ঘণ্টায় জাহির করা সম্ভব! কে যে আবিষ্কার করেছে এসব পরীক্ষা-টরীক্ষা।

লোকটার নাম হেনরি ফিশেল। এই লোকটার কারণেই সুখের শৈশব-কৈশোর সব মাটি (ফার্স্টবয়দের ছাড়া)। বছরের শেষ সময়ে এসে মাথায় লেগে যায় জট। অ্যালজেব্রা আর চিড়িয়াখানার জেব্রাকে দেখায় একই রকম। এরপর শুরু হয় দিন গোনা। কবে যে শেষ হবে পরীক্ষা! যার কারণে এত টেনশন, সেই ফিশেল মশাইয়ের আজকে একশত সাত তম জন্মবার্ষিকী। পরীক্ষার আবিষ্কারক বলে অনেকেই চেনে তাঁকে। তিনিই বের করেছেন, বছর শেষে একটা পরীক্ষা না নিলেই নয়। কে পড়াশোনা করেছে আর কে করেনি, সেটা যাচাই করার এর চেয়ে ভালো পদ্ধতি নাকি আর নেই।

এরই মধ্যে যারা যারা ফিশেলের মুণ্ডুপাত করেছ, তাদের প্রতি সহমর্মিতা জানিয়ে বলে রাখি, আসলে গোটা জীবনটাই তো পরীক্ষা। নানা রকম পরীক্ষা না থাকলে তো বিপদেই পড়ে যাবে। পরীক্ষা না থাকলে দেখা যাবে তোমার চেয়ে অনেক অনেক কম যোগ্য একজন পেয়ে যাচ্ছে নানা সুযোগ-সুবিধা ও সম্মান। পরীক্ষা নেই তো তোমার যোগ্যতা প্রমাণের উপায়ও নেই। তারপর? দেখবে কেউ তোমাকে দামই দিচ্ছে না। তখন নিশ্চয়ই খুব খারাপ লাগবে। সুতরাং ফিশেলকে দোষ দেওয়াটা ঠিক হবে না। সময় থাকতে এখনই ধন্যবাদ জানিয়ে বলে ফেলো- হ্যাপি বার্থডে ফিশেল!

👨‍💼হেনরি এ. ফিশেল
(নভেম্বর ২০, ১৯১৩ – মার্চ ২০, ২০০৮).

Get the kotha app

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *