Categories
Movies

@Movie kotha

#News পর্ব ১

চোলুন আজ Movie কtha NEWS এ জেনে নেওয়া যাক Marvel এর আপকামিং সো গুলি ৷
আমার মত যারা Marvel এর পাগল ভক্ত তারা জেনেই থাকবে করোনার কারণে সব সো এবং ছবি গুলির মুক্তির সময় পিছিয়েছে।

আজ আমি সেই সব সো গুলির পরবর্তী মুক্তির তারিখ নিয়ে Movie kotha [NEWS ] এ হাজির হয়েছি।

১.The Falcon And The winter soldier মুক্তি পাচ্ছে ⏩ আগস্ট এর ২০২০ সালে।

২.Wandavision মুক্তি পাচ্ছে ⏩ ডিসেম্বর ২০২০।

৩.Loki মুক্তি পাচ্ছে ⏩ ২০২১সালের প্রথম দিকে।

৪.What If মুক্তি পাচ্ছে ⏩ ২০২১ সালে Loki মুক্তির কিছু মাস পর।

৫.Howkeye মুক্তি পাচ্ছে ⏩ ২০২২ সালে।

৬.Ms. MARVEL মুক্তি পাচ্ছে ⏩ ২০২২ সালে।

৭.MooN Knight মুক্তি পাচ্ছে ⏩ ২০২২ সালে।

8.She Hulk মুক্তি পাচ্ছে ⏩ ২০২২ সালে।

লিখনিতে আপনাদের ছোট্ট সদস্য @sabbir2.1
ভালো থাকবেন, ভালো রাখবেন আর ভালোবাসবেন “কথা”কে।

#বাসায় থাকুন।
#সুস্থ থাকুন।

Categories
Lifestyle

#TrendingNatok

Categories
Movies

@Movie kotha

🔘No Spoiler🔘

মুভির নামঃ পেলে বার্থ আফ আ লিজেন্ড
পরিচালকঃ জেফ জিম্বালিস্ট
মুভির ধরণঃ ড্রামা, বায়োগ্রাফি, স্পোর্টস
ভাষাঃ ইংরেজি
আইএমডিবি রেটিংঃ ৭.২/১০
পারসোনাল রেটিংঃ ৮.৫/ ১০

মুভির নাম শুনেই বুঝে যাওয়ার কথা মুভিটা কাকে নিয়ে। দারুণ অনুপ্রেরণাদায়ী একটি চলচ্চিত্র – নিঃসন্দেহে বলা যায়।।সাধারণ দর্শকদের রিভিউ আর রেটিং দেখে বোঝা যায় মুভিটা তারা বেশ উপভোগই করেছেন। ফুটবল ইতিহাসের এক কিংবদন্তী হিসেবে যাকে সবাই একনামে চেনে সেই পেলের ছোটবেলার অনেক দুঃসহ স্মৃতি আর যুদ্ধ জয় করা থেকে শুরু করে বিশ্বমঞ্চে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা পর্যন্ত সবকিছুই খুব সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে এখানে কাজেই আসল কাহিনীর প্লট রিভিউ দেওয়া এখানে দরকার নেই বলে মনে করছি। ব্যক্তিগত মতামত যদি বলেন, তবে বলবো, আপনি ব্রাজিলের ফুটবল ভালোবাসেন বা নাই বাসেন, সমস্যা নেই। কিন্ত মুভিটাতে যে ফুটবলের ল্যাটিন ফুটবলের ঐতিহ্যের ছবি অংকন করা হয়েছে, সেটুকু দেখে আপনি বিমোহিত হবেন নিশ্চিত। আর ছবির অভিনেতারা তাদের শতভাগ দিয়ে চেষ্টা করেছেন সেটা মুভি দেখতে বসলেই বুঝতে পারবেন। এবং মুভিটা দেখতে বসলে দেখার একটা সময় নিশ্চিত আপনি নিজেকে ২০২০ এ না, ওই ‘৫০ এর দশকের ভেতর আবিষ্কার করবেন! আর হ্যাঁ, ছোট কিন্ত চমকপ্রদ একটা ক্যামিওর উপস্থিতিও পাবেন মুভিটায়।

লিখনিতে আপনাদের ছোট্ট সদস্য ®sabbir2.1

আর পাশেই থাকুন ভালোবাসা দিতে থাকুন। জি শুধু আমাকে নয়😊 আমাদের এই অসাধারণ (কথা এপস্) টিকে। যার দ্বরুন আজ আমরা একত্রিত ।

ভালোবাসা সবার জন্য।
ধন্যবাদ।

Categories
Movies

#Movie kotha

শুভ জন্মদিন “মি. নওয়াজ উদ্দিন সিদ্দিকী❤

মুন্না ভাই এমবি. বি. এস. এ পকেটমার এর চরিত্রে কিছু সময়ের জন্য অভিনয়। তাছাড়া এর আগে-পরে অনেক সিনেমা করেছেন তবে সবার নজর কেড়েছেন সালমানের সাথে কিক সিনেমায়💟। অতপর বদলাপুর তারপর আবার ভাইজানের সাথে বজরঙ্গি ভাইজান এ দর্শনের আকর্ষণ কেড়ে নেন। উক্ত মুভিতে করা চরিত্রের নাম কোথায় শুনলে উনার কথাই মনে পড়ে যায়😍 “চাঁদ নবাব”। ” মানঝি” মুভিতে ক্লাসিক অভিনয় 👉🔥🔥🔥। বর্তামানে ভারতের টপ অভিনেতাদের একজন তিনি। সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে উনার মুখের ভঙ্গিগুলো🥰…

তিনি “তালাশ” মুভির জন্য পেয়েছেন,
-জাতীয় চলচিত্র পুরুষ্কার
-জি সিনে পুরুষ্কার
-ক্রিন পুরুষ্কার
-এশিয়া চলচিত্র পুরুষ্কার(পার্শ্বচর অভিনেতা)

এছাড়াও তিনি ২বার “ফিল্মফেয়ার পুরুষ্কার(পার্শ্বচর অভিনেতা)” পেয়েছেন “দ্য লাঞ্চবক্স” & “বদলাপুর” সিনেমার জন্য। এগুলো ব্যতীত আরোও কয়েকটি পুরুষ্কার জিতেছেন।(উইকি থেকে নেওয়া ত্বত্ত্ব, ভুল-ত্রুটি হলে ক্ষমা করবেন🤲)

Categories
Lifestyle

রোজায় বেড়েছে অ্যাসিডিটির সমস্যা?

আমিনা শাহনাজ হাশমি

রোজা প্রায় শেষের দিকে। অনেকে এর মধ্যেই অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন, আবার কেউ কেউ হয়তো গ্যাস্ট্রিকের মতো নানা জটিলতায় পার করছেন রোজার মাস। জেনে নিন অ্যাসিডিটির সমস্যা এড়াতে কী করবেন, কী করবেন না।

ইফতার শুরু করতে হবে অল্প খাবার দিয়ে। খেজুর দিয়ে শুরু করতে পারেন ইফতার। তবে অতিরিক্ত পরিমাণে খেজুর খাবেন না। এরপর দুই-এক ঢোক পানি খেয়ে এক গ্লাস ভুসির শরবত খেতে পারেন।বিভিন্ন ধরনের ফলের জুস খেতে পারেন। বাঙ্গি, পেঁপে, কলা ও তরমুজ দিয়ে বানিয়ে ফেলতে পারেন পানীয়। এগুলো পেট ঠাণ্ডা রাখবে। তবে টকজাতীয় শরবত এড়িয়ে চলাই ভালো। বাজারের জুস কোনওভাবেই খাবেন না।ইফতারে সহজপাচ্য খাবার রাখুন। চিড়া ,কলা, দই, খিচুড়ি, নরম পাতলা রুটি, সবজি ইত্যাদি খেতে পারেন।ইফতারে পেট ভরে না খেয়ে খানিকক্ষণ পর বাকি খাবার খান।ইফতারের ডাল, বুট ছোলা গ্যাস্ট্রিক বাড়াতে পারে। তা এগুলো না খাওয়াই ভালো।সেহরিতে পেঁপে, চালকুমড়া, লাউ, লাউ শাক, পটল, ঝিঙ্গা ইত্যাদি খেতে পারেন।আস্তে আস্তে খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন। এতে খাবার হজম হয় দ্রুত। আবার পেটও ভরে ওঠে অল্প খাবারেই।চা-কফি খাওয়ার অভ্যাস থাকলে তা ত্যাগ করুন।আদা সবচাইতে কার্যকরী অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান সমৃদ্ধ খাবার। অ্যাসিডিটির সমস্যা দূর করতে আদা কুচি করে লবণ দিয়ে চিবিয়ে খান।সেহরি খেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ঘুমিয়ে পড়বেন না। কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করে তারপর ঘুমাতে যান।        

https://www.banglatribune.com/lifestyle/news/624148/%E0%A6%B0%E0%A7%8B%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%AC%E0%A7%87%E0%A7%9C%E0%A7%87%E0%A6%9B%E0%A7%87-%E0%A6%85%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%A1%E0%A6%BF%E0%A6%9F%E0%A6%BF%E0%A6%B0-%E0%A6%B8%E0%A6%AE%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE

Categories
Movies

#movie kotha

#ডাউনলোড লিঙ্ক পর্ব [১]™
Geetha Govinda (2018)

ভাষা= হিন্দি

IMDb Ratting……. : 7.7/10
Facebook Rattling :4.9/5

অনেকের অনেক অনুরোধের পর অবশেষে নিয়ে এলাম। আজ থেকে শুরু হচ্ছে মুভি ডাউনলোড লিঙ্ক এর পর্ব। আপনাদের কমেন্ট এর দ্বারা আমরা পরের ছবিটি বাছাই করে নিয়ে নতুন নতুন পর্ব নিয়ে হাজির হবো।

#বি.দ্রঃলিঙ্ক এর কোন ধরনের সমস্যা হোলে অবশ্যই কমেন্ট এ জানিয়ে দিবেন।

#ডাউনলোড এর নিয়ম =‌ ব্যাবহার করুন UC browser ধন্যবাদ।

লিঙ্ক= https://bit.ly/2xBKBQX

লিখনিতে আপনাদের ছোট্ট সদস্য ®sabbir2.1

আর পাশেই থাকুন ভালোবাসা দিতে থাকুন। জি শুধু আমাকে নয়😊 আমাদের এই অসাধারণ (কথা এপস্) টিকে। যার দ্বরুন আজ আমরা একত্রিত ।

ভালোবাসা সবার জন্য।
ধন্যবাদ।

Categories
Lifestyle

#TrendingMusicVideo

Categories
Movies

@Movie kotha

#Movie_Review

A Taxi Driver
#হালকা_স্পয়লার
.
কোরিয়ান মুভির নাম বললে আমরা প্রায়শই থ্রিলার (Revenge) মুভি সাজেস্ট করে থাকি। যেমন, Old boy, no mercy, forgotten..। অথবা, কোন একটা চরিত্র এবং নির্দিষ্ট ঘটনাকে কেন্দ্র করে একটা গল্পের বেদনাদায়ক সমাপ্তির কথা বললে চলে আসে Miracle in cell no 07 মুভির নাম।
*A Taxi Driver* মুভিটি এক্ষেত্রে কোরিয়ান অন্য সব মুভির থেকে আলাদা। একটা ঐতিহাসিক সত্য ঘটনার প্লট থেকে পাওয়া অনুপ্রেরণীয় চরিত্রের অনবদ্য মুভি হচ্ছে A Taxi Driver.
কোরিয়ার একটি শহরের নাম Gwangju। ১৯৮০ সালে কোরিয়ায় সামরিক আইন জারি করা হলে এই শহরের বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদের নেতৃত্বে গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন শুরু হয়। তারিখটি ঠিক আজকের তারিখ ‘মে ১৮’। ছাত্র জনতা এক হয়ে ওই আন্দোলন যখন বড় হতে থাকে তখন একে প্রতিহত করার জন্য শহরটি লকডাউন করা হয়। কারফিউ জারি করা হয় এবং এক পর্যায়ে চলে নির্মম হত্যাযজ্ঞ। সামরিক বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে সাংবাদিকদের পক্ষে সম্ভব ছিল না সত্য নিউজ প্রচার করার। তখন জাপানে অবস্থানরত একজন জার্মান সাংবাদিক কোরিয়া আসেন এবং সিদ্ধান্ত নেন Gwangju শহরে যাওয়ার। এর জন্য উনার প্রাইভেট ট্যাক্সির প্রয়োজন হয়। সেই ট্যাক্সি এবং ট্যাক্সি ড্রাইভার কিভাবে উনাকে সেই শহরে নিয়ে যেতে হেল্প করে, কেন করে এবং মা হারা সন্তানের জন্য পিতৃত্ববোধকে সংযত করে সেই ট্যাক্সি ড্রাইভার কি পারে শত ঝুঁকি মোকেবেলা করে সেই জার্মান সাংবাদিককে সংবাদ সংগ্রহে করতে সহায়তা করতে? সে কি পারে মৃত্যুর ঝুঁকি এড়িয়ে আবার নিজ সন্তানের কাছে ফিরে আসতে? এর পুরো ক্লাইম্যাক্স উপভোগ করতে পারবেন পুরো মুভিতে।
এই মুভিতে আপনার উপলব্ধি হবে বিপ্লবী মনোভাব কি জিনিস আর এর জন্য মানুষ কেন জীবন পর্যন্ত দিয়ে দেয়! আরও উপলব্ধি হবে সাংবাদিকতা পেশা সম্পর্কে। পেশাটি কতটুকু মহান হতে পারে এবং এই পেশা পালন করা কতটুকু ঝুঁকিপূর্ণ! উপলব্ধি করবেন জীবিকার তাগিদ সম্পর্কে। এটা কি বিবেকবোধ আর দায়িত্ব ভুলিয়ে দিতে যথেষ্ট?
সত্য ঘটনা অবলম্বনে মুভিটি বানানো হলেও চরিত্রের প্রয়োজনে কিছু কিছু ব্যাপার ফিকশনাল রাখা হয়েছে।
মুভিটি একবার দেখার পর এটা নিয়ে আরও অনেক কিছু জানার ইচ্ছে হবে। গুগল করে জেনে নিতে পারবেন 😊।।

#Follow ous for More new Movies and webseris @Movie kotha

Categories
Movies

@Movie kotha

🚫🔺This post may contain spoiler 🔺🚫

🎬 সিনেমা – Ala Vaikunthapurramuloo
🌐 জানরা – Action, Drama
🕰 রিলিজ – ২০২০

তেলেগু সুপারস্টার আল্লু আর্জুনের বিগত নেশ কয়েকটি সিনেমা বক্স অফিসে আশানুরূপ সাফল্য পায়নি তার উপর তেলেগুর আরেক সুপারস্টার মাহেশ বাবুর সিনেমার সাথে ক্লাশ। সিনেমা মুক্তির আগেও আল্লুর সিনেমার চেয়ে মাহেশের সিনেমা নিয়ে হাইপ ছিলো বেশি এবং মাহেশের বিগত সিনেমাগুলোও বক্স অফিসে পেয়েছিলো দারুন সাফল্য। এরকম অনেক কঠিন সমীকরণকে সামনে রেখেই মুক্তি দেয়া হয় Ala Vaikunthapurramuloo সিনেমাটি

এই সিনেমার প্লট হচ্ছে একজন হিংসাপরায়ণ কর্মচারি একই সময়ে জন্ম নেয়া তার বন্ধুর সন্তানের সঙ্গে নিজের সন্তানকে অদল বদল করে ফেলা নিয়ে। আর এই সূত্র ধরেই গল্পের কাহিনী এগিয়ে যেতে থাকে। তেলেগু সিনেমার সেইসব মাসালা কমেডি, এ্যাকশন আর নাচ এগুলা সব ছিলো একদম পরিপূর্ণ। আর যেখানে স্টাইলিশ স্টার আল্লু আর্জুন আছে সেখানে স্টাইল থাকবে না তা আবার হয় নাকি! এই সিনেমাতে এ্যাকশনও ছিলো দারুন স্টাইল মেরে। বান্টু চরিত্রে আল্লু আর্জুন ছাড়াও নায়িকা হিসেবে ছিলেন তেলেগু সিনেমা আর বলি পাড়াতে সমান জনপ্রিয় নায়িকা পূজা। অন্যতম গুরুত্বপূর্ন রোলে ছিলেন তেলেগু নামকরা অভিনেতা মুরালি শর্মা এবং বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী তাবু।

সিনেমায় বান্টু চরিত্রে আল্লু ছিলেন সবসময়ের মতোই নিজের সেই নান্দনিক স্টাইল আর ছন্দে। তাছাড়া তাবু এবং মুরালি শর্মার অভিনয়ও ছিলো তাদের চরিত্রানুযায়ী একদম পারফেক্ট। অন্যান্য তেলেগু সিনেমার মতোই এই সিনেমাতেও নায়িকা খুব বেশি হাইলাইট হয়নি তবে পূজা নিজের যায়গা থেকে বেশ গ্লামারাস ও মিষ্টি ছিলেন পুরো সিনেমা ধরে।

বেশিরভাগ তেলেগু সিনেমার মতোই এই সিনেমায়ও এ্যাকশনে নায়ক একাই ১৫-২০ জনকে মেরে শুইয়ে দিচ্ছে এরকম এ্যাকশন আছে তাই এসব দিকে লজিক খুঁজলে চলবে না কারন মনে রাখতে হবে সিনেমাটা একটা তেলেগু কোর মাসালা এ্যাকশন ফিল্ম।

এই চলচ্চিত্র মুক্তির পর বক্স অফিসে দারুন রাজত্ব করে তেলেগু ইন্ডাস্ট্রিতে সর্বোচ্চ আয় করা সিনেমার দিক থেকে তৃতীয়তে। সামনে শুধুমাত্র বাহুবালি ১ এবং বাহুবালি ২ যেগুলো কিনা মুক্তি পেয়েছিলো প্যান ইন্ডিয়ান আকারে। ভক্তরা সকলেই চাচ্ছিলো আল্লু আর্জুন আবার বক্স অফিসে পারফর্ম করুক কিন্তু কেউ হয়তো ভাবেওনি যে তিনি এরকম রাজকীয় কামব্যাক করবেন তাও সুপারস্টার মাহেশ বাবুর সিনেমার সাথে ক্লাসহ করে তাকে বিট করে। এই সিনেমার সাফল্যের পর বলিউডেও এই সিনেমার রিমেক করার প্রস্তুতি হয়ে গেছে এবং সব ঠিক ঠাকলে হিন্দি ভার্সনে মূল চরিত্রে থাকছেন তরুন উঠতি তারকা কার্তিক আরিয়ান।

এখন পর্যন্ত পাঁচ হাজারেরও অধিক মানুষের ভোটে এই সিনেমার আইএমডিবি স্কোর ১০ এর মধ্যে ৭.২ আর গুগল ইউজারদের মধ্যে শতকরা ৯১ ভাগ মানুষ এই সিনেমাকে পছন্দ করেছে যেখানে গুগল অডিয়েন্স রেটিং ৫ এর মধ্যে ৪.৪।

#Follow ous for More new Movies and webseris @Movie kotha

Categories
Movies

@Movie kotha

Movie: The dark knight
Genre: Action, Thriller
Imdb rate: 9/10
Personal rate: 💚/10

আমি আমার লাইফে কোনো ভিলেনকে এভাবে হিরোকে challenge করতে দেখি নাই যেটা জোকার করেছে৷ হিরো সুপার মুভির ইতিহাসে এটা অন্যতম শ্রেষ্ঠ মুভিগুলার একটা। আর ভিলেন জোকারের জন্য মুভিটা আরও শক্তিশালী হয়েছে।Joker has played the best role…

**No spoiler**
মানুষের মনোজগতকে পরীক্ষা করার অসাধারণ সব পদ্ধতি ছিল জোকারের। জোকার মনে করতেন, এই সমাজের মানুষ সবাই হলো Schemer। যারা নিয়মের কারণে স্থির শান্ত হয়ে বসে থাকে। নিয়ম একবার বন্ধ করে দিলেই সবাই অস্থির হয়ে যাবে। খুন, জখমে লিপ্ত হয়ে বিশৃঙ্খল হয়ে যাবে। তার প্রধান পরিকল্পনা ছিল মানুষের এই আসল রুপটা বের করে আনা। মৃত্যুতে তার কোনো ভয় ছিল না।এজন্য সে ইচ্ছামতো মানুষকে challenge করতে পারতো।
আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ ক্যারেক্টার ছিল কমিশনার। সৎ এবং সাহসী। ক্রিমিনালদের ধরা তার প্রধান লক্ষ্য। অনেকেই তাকে ব্যাটম্যানের সাথে তুলনা দেয়। এই কমিশনারও পরে যে কী ভয়ংকর কান্ড ঘটায়, তা দেখলে অবাক হই।
এতো চরম মুভি খুব কমই পেয়েছি। একবার দেখলে বারবার দেখতে ইচ্ছা করে। মানুষকে নিয়ে এভাবে খেলতে কখনো দেখিনি, যেভাবে জোকার খেলেছে। ব্যাটম্যানও তার জায়গায় অসাধারণ ছিল। খুব উপভোগ্য একটা মুভি। আপনি যদি সাইকোলজিক্যাল মুভি পছন্দ করেন এটা অবশ্যই দেখবেন।খুব আনন্দ দেবে।সুপার হিরু best film..

#Follow ous for More new Movies and webseris @Movie kotha

Categories
Lifestyle

মানসিক স্বাস্থ্য কথা নিয়ে কথা বলছেন ড. মুহাম্মদ মাহমুদুর রহমান, অধ্যাপক Department of clinical psychology, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

লাইভ টি দেখার জন্য নিচের লিঙ্ক এ ক্লিক করুন।

https://www.facebook.com/205920573146435/posts/776255139446306/

Categories
Movies

@Movie kotha

মুভির নামঃ (Don’t Breathe)

থ্রিলার লাভারস যারা আছেন,
তাদের অবশ্যই এইটা দেখা উচিত,
মাস্টারপিস একটি মুভি।
প্লটঃ তিন বন্ধু মিলে ঠিক করে একজন অন্ধ সৈনিকের বাড়িতে ডাকাতি করার,
এবং রাতের সময়টাকে বেছে নেয়,
তারা আদৌ জানতোনা তাদের জন্য বাড়ির ভেতর কি কি অপেক্ষা করছে,এবং তারা কতবড় ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে,না,মুভিটি হরর না,তবে মানুষ কতটা হরফায়িং হতে পারে তা অবশ্যই মুভিটিতে দেখানো হয়েছে,
মুভিটাতে টুইস্ট প্রচুর থাকার কারনে দেখে আনন্দ পেয়েছি,
মুভির শেষেও আপনি টুইস্ট পাবেন,কোনোরকম বোর লাগা ছাড়াই দেখে নিতে পারবেন এই মুভিটি।

#Follow ous for More new Movies and webseris @Movie kotha

Categories
Movies

@Movie kotha

মুভি রিভিও: সার্জিও

ডিরেক্টর : গ্রেগ বেকার

স্ক্রিপ্ট: সত্য ঘটনার উপর নির্মিত, সামান্থা পাওয়ার এর “চেজিং দ্যা ফ্লেম:ওয়ান মেন’স ফাইট টু সেভ দ্যা ওয়ার্ল্ড” এর উপরভিত্তি করে।

স্ক্রিন প্লে: গ্রেইগ বোরটান

কাষ্ট: ওগনার মৌড়া, আনা ডি আর্মস, ব্রায়ান ও’বের্নে গেরেট ডিলাহান্ট, ক্লেমেন্স সিচ্সক, উইল ডালটন

বায়োগ্রাফি সো স্পয়লারের বিষয় নাই

ব্রাজিলিয়ান ইউএন ডিপ্লোম্যাট সার্জিও ভিয়েরা ডি মেলো ২০০৩ ইরাকে স্পেশাল রিপ্রেন্টেটিভ হিসেবে এর মৃত্যু / আমার মতে আমেরিকা দ্বারা উনার হত্যা নিয়ে সিনেমা তৈরি।যদিও আমরিকা আল কায়দার আবু মুসায়েব কে দায়ী করসে সার্জিও কে বোমব্লাষ্ট এর মাধ্যমে হত্যার জন্য বাট একটু গুগল আর মুভিটা ভালো মতো দেখলেই টের পাওয়া যায় আসলে কে সার্জিও কে হত্যাকরসে। এই সার্জিও ভদ্রলোক ইউএন এর পিস মিশনের পারফেক্ট ব্যক্তি ছিলেন।বিভিন্ন দেশের গৃহযুদ্ধ অবসানে উনার রক্তপাতহীন ডিপ্লোম্যাটিক পদ্ধতি অনেক জীবন বাঁচিয়েছে।সুদান, সাইপ্রাস, জিম্বাবুয়ে, পেরু কম্বডিয়া, যুগস্লাভিয়া আরো অনেক দেশ, যেখানেই উনি গেসেন শান্তি বজার রাখার চেষ্টা করসেন।বাংলাদেশেও উনি এসেছিলেন, যদিও এর বিস্তারিত আমি পাইনি।

ইরাক এ আসার আগে পূর্ব তিমুরে ইউএন এর ইিউম্যান রাইটস এর হাই কমিশনার হিসেবে ইন্দোনেশিয়ার গনহত্যার জন্য ক্ষমা চাওয়া আর তিমুরের স্বাধীনতার জন্য বিশাল অবদান রাখেন।

বুশের অনুরোধে (পড়ুন চাপে) সার্জিও ও তার টীম আমেরিকার ইরাক আক্রমণের কলংক কভার করার জন্য ইরাকে আসে তথাকথিত নির্বাচন 🤣,ইরাকী জনগনের স্বাধীনতা 😂, সকল বিদ্রোহী দলের কোলাবেরশনে একটা সুষ্ঠু সরকার ব্যাবস্থা গঠন করা 🤣 ব্লা ব্লা মুখস্ত বলি কপচানের জন্য বা আমেরিকার পাপেট হিসেবে।বাট সার্জিও অন্য ধাঁচের পাবলিক।উনি আসলেই ইরাকে নতুন করে গঠন আর শান্তি প্রতিষ্ঠা করার জন্য আসছিলেন।এসেই বুজতে পারেন উনার কাজ সহজ না।ইরাকে আমরিকার চীফ অফ স্টাফের সাথে দ্বিমত করেন। এরপর ইরাকে সত্যিই কি ঘটতেসে তা পুরা পৃথিবীকে জানানোর জন্য একটা প্রেসকনফারেন্স এর ব্যবস্থা করেন।

কিন্তু ঐ প্রেস কন্ফারেন্স আর হয় না।তার আগেই ইউএন এর বিল্ডিং এ বোমা হামলায় বিল্ডিং এর নিচে চাঁপা পরে মারা যান।

মাঝে উনার তিমুর এর কাহিনী সাথে শ্বাশত সুন্দর প্রেম-ভালোবাসা আর উনার প্রখর ব্যক্তিত্বের সুন্দর উপস্থাপন।

মুভি দেখলে বোঝা যায় ২০০০ পরবর্তী ইউএন কতটা কাঠের পুতুল হিসেবে ওঠাবসা করে।আদাতে এটা যে আমেরিকার কথায় ওঠে বসে তা সার্জিও এর মতো নিবেদিত প্রাণ ইউএন কর্মকর্তা হত্যার মধ্য দিয়ে প্রমাণ পায়।যদিও এই হত্যার দ্বায়ভার আলকায়দার উপর দিয়ে আমেরিকা ইরাক ইনভেনশন এর যৌক্তিকতা প্রামণ করে আর ইরাক একটা দীর্ঘ গৃহযুদ্ধের দিকে চলে যায়।আর তা থামাতে সার্জিও এর মতো কেউ ছিলো না তখন।

মুভি সুপার স্লো।অনেক জায়গাতে খটকা লাগতে পারে কারণ ফ্যাশব্যাক আর প্রেজেন্ট মিলে ঘটনা টা দেখানো হইসে।

ডিরেক্টর বেকার ডকুমেন্টরি মেকার হিসেবে নামকরা যদিও এর আগে উনার কোনো কাজ দেখি নাই।

ক্যামেরা, ডায়ালগ, মিউজিকে কোনো খুঁত খুঁজে পাইনি।

সার্জিও চরিত্রে ওগনার তথা ডিপজল কাক্কুর ল্যাতিন আমেরিকান ভার্শন পাবালো ইস্কোবার ( নারকোস) দারুণ করসে, ক্যারোলিনা চরিত্রে নাইভস আউট ও নেক্সট বন্ড গার্ল আনা ডি আর্মস (শালার এর ল্যাটিন আমেরিকান অভিনেত্রী গুলা এতোসুন্দর হয় ক্যান 😑)পারফেক্ট অভিনয় করসে।

গিলি,ফ্রিকশন ক্যারেক্টার (শুধু ইরাকে সার্জিও এর সহকারী ছিলো) হিসেবে ব্রায়ান এফ ও’বের্নে ও দারুণ করসে।

দেখতে পারেন এই Quarantine এ

#Follow ous for More new Movies and webseris @Movie kotha

Categories
Lifestyle

Live today at 4 pm. Will share the live link soon

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=682349375931887&id=431889987644495

Categories
Movies

@Movie kotha

Movie:- ”MUCIZE”(2015)
Genre:-Drama,Romance,Comedy
IMDb:-7.6/10
★★স্পয়লার★★

কাহিনী সংক্ষেপঃ-
শহরের দূরের এক গ্রামে এক শিক্ষক যান পড়ানোর জন্য যেখানে কিইনা কোনো স্কুলই নেই।
নেই বিদ্যুৎ,নেই পানির সুবিধা,এমনকি নেই কোনো সহজলভ্য রাস্তাও।
সেখনকার মানুষ তাকে দেখে যারপরনাই খুশী হয়।
শিক্ষক কোনোভাবে সেখানে সব ব্যাবস্থা করে পড়ালেখা চালু করেন বাচ্চাদের মাঝে।
সেখানকার প্রধানের ছেলে আজিজ।
শারিরীক প্রতিবন্ধী, না চলতে পারে ঠিকমতো, না কথা বলতে পারে।
অনেক সময় হিতাহিত জ্ঞানও হারিয়ে ফেলে।
তাকে ঘিরে শুরু হয় আস্তে আস্তে কাহিনী।
শিক্ষক তাকে কিভাবে অনুপ্রাণিত করে, কিভাবে ভালোবাসার সাথে আদরের সাথে কাছে টেনে নেয় আস্তে আস্তে এভাবে এগিয়ে চলে গল্পের মোড়।
এরপরই কোনো এক ঘটনায় আজিজের বাবা আজিজকে বিয়ে করান।
এত সুন্দরী বউ পুরো গ্রামে কারোরই নেই।
এরপর কি হয়??
আস্তে আস্তে কিভাবে নেমে আসে আরো দুঃখ,কষ্ট,বেদনা।
শেষে কি হয়??
এভাবেই কি কাহিনী শেষ হবে নাকি নতুন মোড় নেবে কোনো কিছু?
জানতে হলে দেখতে থাকুন ছবিটি।
আর হ্যাঁ শেষ দৃশ্যে একটা বড় চমক রয়েছে।

“আজিজ”
চরিত্রটি পাগল মানসিক ভারসাম্যহীন হলেও আপনি মুভিটি দেখার সময় ওর প্রতি অজানা একটা ভালোলাগা কাজ করবেই।
হয়তো আপনি ওর সাথে হাসবেন,হয়তো কিছু ক্ষেত্রে আপনি ওর জন্য কাঁদবেন,কিছু সময় আপনার একটা খারাপ লাগা তৈরি হবে ইশ এমন যদি না হতো।মোটকথা আপনি যদি খুব ইমোশনাল হোন চরিত্রটি আপনাকে জীবনের বিভিন্ন রুপ দেখাবে।
আর শিক্ষক চরিত্রটি সম্পর্কে বলার কিছু নেই।সত্যিই এমন শিক্ষকরা সেরা😍
বিনম্র শ্রদ্ধা এমন পিতৃতুল্য শিক্ষকদের প্রতি।🙏

এই প্রথম তুর্কি ছবি দেখা।
প্রথম দেখেই এত ভালো লেগেছে যা আসলে প্রকাশ করার বাইরে।
এত সহজ সরলভাবে এত সুন্দর করে কোনো গল্পকে এমন করে ফোঁটানো যায়, না দেখলে বিশ্বাসই হতো না।
এত কাহিনী উল্লেখ করলাম কিন্তু বিশ্বাস করেন, ছবিটি দেখার সময় মনে হবে কিছুই বলি নি যা দেখছেন সবই একদম অসাধারণ কিছু হচ্ছে।
আর হ্যাঁ,কোনো Adult Scene নেই।সব বয়সের অডিয়েন্সই দেখতে পারেন।

থ্রিলার মুভি দেখার ফাঁকে এমন মুভি দেখার চান্সই হয় না।
আজ দেখে প্রচন্ড অভিভূত।(ব্যাক্তিগত মতামত)
মনে হয় না এই ছবির কোনো হেটার্স থাকবে।কারণ ঘৃণা করার মতো সামান্য দৃশ্যও নেই এখানে।😍
তবুও সবার মতামত হয়তো এক নয়।

#Follow ous for More new Movies and webseris @Movie kotha